আজ ২৮শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ সংবাদ :

শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শনে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী: চালকদের দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাট ব্যবহারের আহ্বান

মো. শওকত হোসেন: মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটের চাপ ও বিড়ম্বনা এড়াতে যাত্রী ও যানবাহনের চালকদের দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ঘাট ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। আজ শুক্রবার দুপুরে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শন এসে এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, এবারের ঈদে যাত্রী পারাপারের জন্য অধিক গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া নৌপথকে। এই ফেরিঘাট ঈদে ঘরমুখী মানুষের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সেখানে ২৫টি ফেরির ব্যবস্থা করা হয়েছে। ফেরি দিয়ে যানবাহন ও যাত্রী পারাপার করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, আমরা কিছুদিন আগে যাত্রীদের বলেছিলাম, আপনারা পাটুরিয়া নৌপথ ব্যবহার করেন, তাহলে আপনাদের ভোগান্তি কম হবে। অনেক সংবাদমাধ্যমেও দেখেছি, আজকে পাটুরিয়া ঘাট অনেকটাই ফাঁকা। আমাদের নির্দেশনা না শুনে অনেকেই শিমুলিয়া ঘাটে এসেছেন। ফলে সাহ্‌রির পর থেকে শিমুলিয়া ঘাটে প্রচণ্ড চাপ পড়েছে। আমাদের বিআইডব্লিউটিএর লোকজন ও পুলিশ সদস্যরা চাপ নিয়ন্ত্রণে বৃহস্পতিবার রাত থেকে কাজ করছেন।

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজ থেকে পোশাক কারখানা বন্ধ হচ্ছে। বিকেলের পর থেকে মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে চাপ আরও বাড়বে। যাত্রীদের দুর্ভোগ কমাতে বিকল্প নৌপথ হিসেবে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাট ব্যবহার করার অনুরোধ করা হয়েছে।

শিমুলিয়া ঘাটে ১০টি ফেরি চলাচলের বিষয়ে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, পদ্মা সেতুর নিরাপত্তার স্বার্থে বিআইডব্লিউটিএ, বিআইডব্লিউটিসি, সেতু ও সেনাবাহিনীর উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারদের সঙ্গে কথা বলে সবচেয়ে ভালো ফেরিগুলো শিমুলিয়া-বাংলাবাজার-মাঝিকান্দি নৌপথে দেওয়া হয়েছে। ২৪ ঘণ্টা এই নৌপথে এখন ফেরি চলছে। এসব ফেরি এই নৌপথের জন্য যথেষ্ট।

পরে ঘাটে এসে আগে ফেরিতে ওঠার বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, কোনো ভিআইপিকে আগে সিরিয়াল দেওয়া হবে না। আমাদের একজন সাবেক মন্ত্রীও পদ্মা পাড়ি দিতে এই ঘাটে দুই ঘণ্টা অপেক্ষা করেছেন। সিরিয়াল মেনেই তিনি পদ্মা পাড়ি দিয়েছেন।

শিমুলিয়া ঘাট পরিদর্শনের এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম সাদেক, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান সামিম আল রাজী, অতিরিক্ত ডিআইজি মাহবুবুর রহমান ও মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার আবদুল মোমেন, লৌহজং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আব্দুল আউয়াল প্রমুখ।#

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ :